শিরোনাম:
পাইকগাছা, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

SW News24
শনিবার ● ৮ এপ্রিল ২০২৩
প্রথম পাতা » বিশেষ সংবাদ » সংবিধানের রাষ্ট্রধর্মে বিব্রত ইনু
প্রথম পাতা » বিশেষ সংবাদ » সংবিধানের রাষ্ট্রধর্মে বিব্রত ইনু
১৭৩ বার পঠিত
শনিবার ● ৮ এপ্রিল ২০২৩
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

সংবিধানের রাষ্ট্রধর্মে বিব্রত ইনু

জাসদ সভাপতি ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘রাষ্ট্রের কোনো লিঙ্গ, ধর্ম, বর্ণ, জাত-পাত নাই। স্বয়ং মহানবী (সা.) মদিনা সনদে কোনও রাষ্ট্রীয় দলিলে বিসমিল্লাহ ব্যবহার করেননি। অপর দিকে, ধর্মকে উনি কোনো সময়ই ব্যবহার করে নাই।

তিনি বলেন, জেনারেল জিয়া ও জেনারেল এরশাদ সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম সংযোজন করেছেন। সংবিধানের মূল কাঠামোর সঙ্গে সাংঘর্ষিক অবস্থায় নিয়ে গেছেন। এই সাংঘর্ষিক অবস্থা আমাদের বিব্রত করছে। সংবিধানের এই সাংঘর্ষিক অবস্থা থেকে রেহাই দেওয়ার জন্য এবং সংবিধানর মূল কাঠামোর সঙ্গে যা যা সাংঘর্ষিক সব বিলোপের জন্য বিবেচনা করা উচিত।’

  শনিবার ৮ এপ্রিল--- জাতীয় সংসদের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বিশেষ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১৪৭ বিধিতে উত্থাপিত প্রস্তাবের ওপর আলোচনা অংশ নিয়ে ইনু এ প্রস্তাব দেন। এ সময় ডেপুটি স্পিকার শামসুল হক টুকু অধিবেশনে সভাপতিত্ব করছিলেন।

রাষ্ট্রধর্ম ইসলামসহ সংবিধানের মূল কাঠামোর সঙ্গে যা যা সাংঘর্ষিক সেগুলো বাদ দিতে পর্যালোচনা কমিটি গঠন করার প্রস্তাব করেন। এর জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধান করে একটি বিশেষ কমিটি গঠনের প্রস্তাব করেন।

হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘১৯৯১ সালের নির্বাচনে খালেদা জিয়া সরকার গঠন করলেও শেখ হাসিনা বিরোধীদলের নেতা হিসেবে সংখ্যাগরিষ্ঠ বিএনপিকে বাধ্য করেছিলেন সংসদীয় পদ্ধতিতে প্রত্যাবর্তন করতে। শেখ হাসিনাই দ্বাদশ সংশোধনীর কারিগর, ’৭৫-এ হারিয়ে যাওয়া সংসদের সার্বভৌমত্ব ফিরিয়ে আনার কারিগর। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে প্রজ্ঞা, দৃঢ়তা প্রকাশ পায় ৯১ সালেই।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সংসদের এগিয়ে চলার প্রশংসা করে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘আমাদের এগিয়ে যাওয়ার জন্য দরকার আরও সম্পূরক আইন-কানুন, আরও অংশগ্রহণমূলক ও গণতান্ত্রিক সংসদীয় ব্যবস্থা; প্রশাসনের ওপর আরও নজরদারি। রাজনীতির মাঠে যে প্রস্তাবগুলো আলোচনায় আসে সেগুলো আমলে ও বিবেচনায় নিয়ে সংবিধান সংশোধন করার জন্য শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি সংসদীয় কমিটি করা উচিত।  (ঢাকা পোষ্ট) 





বিশেষ সংবাদ এর আরও খবর

পাইকগাছায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সড়কের পাশে মরা গাছ যেন মরণ ফাঁদ ! পাইকগাছায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সড়কের পাশে মরা গাছ যেন মরণ ফাঁদ !
পাইকগাছায় প্রধান শিক্ষককে কান ধরে উঠবস করানো সভাপতি আরশাদকে অব্যাহতি পাইকগাছায় প্রধান শিক্ষককে কান ধরে উঠবস করানো সভাপতি আরশাদকে অব্যাহতি
দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নে চীনের সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নে চীনের সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী
নকলার ইউএনও’র বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে তথ্য কমিশনের সুপারিশ নকলার ইউএনও’র বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে তথ্য কমিশনের সুপারিশ
দেশের মানুষের গড় আয়ু ৭২.৩ বছর দেশের মানুষের গড় আয়ু ৭২.৩ বছর
সুইডেনের রাজকন্যা কয়রায় আসছেন; ব্যাপক প্রস্তুতি সুইডেনের রাজকন্যা কয়রায় আসছেন; ব্যাপক প্রস্তুতি
চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করল ইসি চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করল ইসি
সকলের প্রচেষ্টায় ভূমিসেবাকে স্মার্টসেবায় রূপান্তর করতে চাই    -ভূমিমন্ত্রী সকলের প্রচেষ্টায় ভূমিসেবাকে স্মার্টসেবায় রূপান্তর করতে চাই -ভূমিমন্ত্রী
যে কোনো উন্নয়ন কাজ সেনাবাহিনী সর্বোচ্চ দক্ষতার সাথে করে থাকে - - সেনাপ্রধান যে কোনো উন্নয়ন কাজ সেনাবাহিনী সর্বোচ্চ দক্ষতার সাথে করে থাকে - - সেনাপ্রধান
পাইকগাছার দেলুটিতে শীতবস্ত্র, খাদ্য, ক্রীড়া-সামগ্রী, স্কুল ব্যাগ এবং কৃষি উপকরণ বিতরণ করেন সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ পাইকগাছার দেলুটিতে শীতবস্ত্র, খাদ্য, ক্রীড়া-সামগ্রী, স্কুল ব্যাগ এবং কৃষি উপকরণ বিতরণ করেন সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)