শিরোনাম:
পাইকগাছা, সোমবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯

SW News24
শুক্রবার ● ২৫ নভেম্বর ২০২২
প্রথম পাতা » শিক্ষা » খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বমানে উন্নীত করাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য : উপাচার্য
প্রথম পাতা » শিক্ষা » খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বমানে উন্নীত করাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য : উপাচার্য
৪৮ বার পঠিত
শুক্রবার ● ২৫ নভেম্বর ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বমানে উন্নীত করাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য : উপাচার্য


বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রাসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শুক্রবার ২৫ নভেম্বর--- খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন করা হয়। এ বছর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষাকার্যক্রমের বত্রিশ বছর পূর্ণ করে তেত্রিশ বছরে পদার্পণ করলো। উৎসবমুখর পরিবেশে সকাল ১০.১৫ মিনিটে এ উপলক্ষ্যে প্রথমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল কালজয়ী মুজিব ও পরে শহিদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। এরপর হাদী চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন।

শোভাযাত্রা শুরুর প্রাক্কালে এক শুভেচ্ছা বক্তব্যে তিনি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার আন্দোলন-সংগ্রাম থেকে শুরু করে এ বিশ্ববিদ্যালয় বিকাশে নানাভাবে যারা অবদান রেখেছেন তাদের প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরলস প্রচেষ্টায় দেশ-বিদেশে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় সাফল্যগাঁথা তৈরিতে সক্ষম হয়েছে। তিনি তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন শ্লোগান নির্ধারিত হয়েছে। নতুন শ্লোগানের ধারায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বমানে উন্নীত করতে বেশকিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে বিশ্বমানের ওবিই কারিকুলায় নিজেদের মানিয়ে নেয়া, সকল বিষয়ে গবেষণার সুযোগ সৃষ্টি করা, ই-নথি চালু করা, বিশ্ববিদ্যালয়কে ডিজিটাইজেশনের আওতায় আনা। একই সাথে বিশ্ববিদ্যালয়কে গ্রিন ক্যাম্পাসে পরিণত করতে নানা উদ্যোগ বাস্তবায়িত হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি এ কাজে সফলতার জন্য সকলের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।

উপাচার্য বলেন, দেশে বধ্যভ‚মির উপর স্থাপিত একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে ১৯৯১ সালে শিক্ষা কার্যক্রমের শুরুতে প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা এই ক্যাম্পাসকে ছাত্ররাজনীতিমুক্ত রাখার যে অঙ্গীকার হয়েছিলো তা গত ৩২ বছর ধরে পালিত হচ্ছে। এটা অনন্য নজির। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণার মান বিশ্বমানে পৌঁছানো, আন্তর্জাতিক র‌্যাংকিংয়ে মর্যাদাপূর্ণ অবস্থান তৈরি এবং নতুন নতুন উদ্ভাবনার মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় নতুন লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। এর মধ্যে গবেষণায় সবিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে। তিনি আজকের এই উৎসবমুখর পরিবেশে উপস্থিত সকলকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান এবং ভবিষ্যতেও সহযোগিতা কামনা করেন।

পরে শোভাযাত্রাটি হাদী চত্বর থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহিদ তাজউদ্দীন আহমদ প্রশাসন ভবন ঘুরে পুনরায় হাদী চত্বর হয়ে কটকা স্মৃতিস্তম্ভ, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি ভবনের সামনে দিয়ে অদম্য বাংলা হয়ে হাদী চত্বরে এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরা, ট্রেজারার অধ্যক্ষ অমিত রায় চৌধুরী, বিভিন্ন স্কুলের ডিন, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত), ডিসিপ্লিন প্রধানবৃন্দ, বিভাগীয় প্রধানবৃন্দ, প্রভোস্ট, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

পরে বর্তমান মেডিকেল সেন্টার সংলগ্ন স্থানে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসকে গ্রিন ক্যাম্পাসে পরিণত করতে সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট প্রকল্পের উদ্বোধন করেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন। এসময় তিনি বলেন, আমরা যেমন নিজেদের বাড়িতে থাকার যেভাবে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখি সেই মানসিকতা নিয়ে আমাদের কর্মস্থল এবং বিশেষ করে এ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসকে যেনো আমরা সবাই পরিচ্ছন্ন রাখি। তিনি এই সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট প্রকল্প বাস্তবায়নে স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের নকশা, প্রকল্পের কনসালটেন্ট এবং বাস্তবায়নে প্রকৌশল ও এস্টেট শাখাকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান। সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট প্রকল্পের ডাস্টবিনসহ নকশা প্রণয়ন করেছেন স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের শিক্ষক অন্তু দাশ।

এরপর উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষ্যে কেক কাটেন। তিনি উৎসবমুখর পরিবেশে কেক কাটা অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় পরিষদকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানান। এসময় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরা, পরিষদের সভাপতি এস এম মনিরুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক দীপক চন্দ্র মন্ডল বক্তব্য রাখেন।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল ও মন্দিরে প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। দিনের অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিলো- মুক্তমঞ্চে বিভাগ,ডিসিপ্লিনসমূহের গত বছরের অর্জন ও আগামী বছরের পরিকল্পনা উপস্থাপন, বিগত বছরের কৃতিত্ব অর্জনকারী শিক্ষার্থী ও সংগঠনমূহকে সম্মাননা প্রদান, স্মরণিকা প্রকাশ, বিকাল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। দিবসটি উপলক্ষ্যে ক্যাম্পাসের মেইন গেট, রাস্তা, শহিদ তাজউদ্দীন আহমদ ভবন, উপাচার্যের বাসভবন, ক্যাফেটেরিয়া, একাডেমিক ভবন ও হলসমূহ আলোকসজ্জা করা হয়।





শিক্ষা এর আরও খবর

শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার সাথে সাথে মানবিক গুনাবলী অর্জন করতে হবে -জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার সাথে সাথে মানবিক গুনাবলী অর্জন করতে হবে -জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী
জাতির উন্নয়ন ও অগ্রগতির পূর্বশর্ত হলো শিক্ষ  -শিক্ষা মন্ত্রী জাতির উন্নয়ন ও অগ্রগতির পূর্বশর্ত হলো শিক্ষ -শিক্ষা মন্ত্রী
পাইকগাছায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় সভা ও বর্ষবরণ অনুষ্ঠান পাইকগাছায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের মাসিক সমন্বয় সভা ও বর্ষবরণ অনুষ্ঠান
খুলনা লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের একটি ঐতিহ্য রয়েছে                                                                                                                                              -সিটি মেয়র খুলনা লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের একটি ঐতিহ্য রয়েছে -সিটি মেয়র
কয়রায় কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের দক্ষতামান বেসিক সমাপনী পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন কয়রায় কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের দক্ষতামান বেসিক সমাপনী পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন
প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘মিড ডে মিল’ চালু করলেন ইউএনও সাদিয়া ইসলাম প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘মিড ডে মিল’ চালু করলেন ইউএনও সাদিয়া ইসলাম
কোমলমতি শিশুদের নিয়ে ইউএনও’র ব্যতিক্রমী উদ্যোগ কোমলমতি শিশুদের নিয়ে ইউএনও’র ব্যতিক্রমী উদ্যোগ
পাইকগাছায় শহীদ জিয়া মাধ্যমিক বালিকা  বিদ্যালয়ে নবীন বরণ অনুষ্ঠান পাইকগাছায় শহীদ জিয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে নবীন বরণ অনুষ্ঠান
উৎসব মুখর পরিবেশে কয়রায় বই উৎসব পালিত উৎসব মুখর পরিবেশে কয়রায় বই উৎসব পালিত
বগুড়ায় পরীক্ষণ বিদ্যালয়ে ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব দিবস-২০২৩’ উদযাপন বগুড়ায় পরীক্ষণ বিদ্যালয়ে ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব দিবস-২০২৩’ উদযাপন

আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)