শিরোনাম:
পাইকগাছা, মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮
SW News24
সোমবার ● ১৯ জুলাই ২০২১
প্রথম পাতা » অপরাধ » কয়রায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৩ ও আটক ৩
প্রথম পাতা » অপরাধ » কয়রায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৩ ও আটক ৩
৭৪ বার পঠিত
সোমবার ● ১৯ জুলাই ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

কয়রায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৩ ও আটক ৩



রামপ্রসাদ সরদার, কয়রা  ---
খুলনার কয়রায় জমা-জমির বিরোধে অতর্কিত হামলায় ৩জন আহত হয়েছে। অতঃপর ৩জন আটক হয়েছে।
চলতি বর্ষা মৌসুমে জমি মালিক তার পছন্দমত বর্গাচাষীকে জমি দেওয়ায় সাবেক বর্গাচাষী ও তার লোকজন অতর্কিত হামলা চালালে ৩ জন গুরুতর জখম হলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । এ ঘটনায় পুলিশ হামলায় ব্যবহৃত চাইনিজ কুড়াল, দা, লোহার রড ও লাঠি সহ ৪ জনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলেন স্বাধীন (২৬), রনি (২৪) ও আলামিন (২৮)। 
ঘটনাটি কয়রা থানার বাগালী ইউনিয়নের মাথাভাঙ্গা গ্রামে এবং এ ঘটনায় বর্গা চাষী আবু বাক্কার সানা কয়রা থানায় মামলা করেছেন। রবিবার সরেজমিনে জানা গেছে, মাথা ভাঙ্গা গ্রামে জমির মালিক জায়গীরমহল গ্রামের লুৎফর সরদার পৈত্রিক সাড়ে ৭ বিঘা জমি মাথাভাঙ্গা গ্রামের গ্রামের প্রভাবশালী জামায়াত নেতা আফজাল ফকিরের নিকট দীর্ঘদিন বর্গা দিয়ে আসছিলেন। কিন্তু চলতি রোপা-আমন মৌসুমে উক্ত আফজাল ফকিরের সাথে মতানৈক্য দেখা দেওয়ায় লুৎফর সরদার একই গ্রামের আবু বাক্কার সানার কাছে সম্পূর্ণ জমি বর্গা দেয়। 
সূত্র জানায়, শনিবার বর্গা চাষী আবু বাক্কার উক্ত জমিতে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চাষ করে বাড়ী ফেরার পথে সাবেক বর্গাদার আফজাল ফকির ও তার আত্মীয় স্বজন পরিকল্পিতভাবে দা, কুড়াল, লাঠি ও চাইনিজ কুড়াল ব্যবহার করে অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় আশে পাশের লোকজন ছুটে এসে আফজাল ফকিরের জামাই, পুত্র ও অপর ২ জনকে আটক করে। কিন্তু আটকের আগেই আসামীদর হাতে থাকা দা, কুড়ালের আঘাতে ৩ জন মারাক্তক জখম হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে এবং আহত অবস্থায় তাদের জায়গীরমহল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এদিকে খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছালে গ্রামবাসী আটক ৪ যুবকসহ হামলায় ব্যবহৃত দা, লাঠি , কুড়াল ও চাইনিজ কুড়াল পুলিশের নিকট সোপর্দ করে। 
জানা গেছে, গ্রামবাসী ছুটে আসতে দেখে আফজাল ফকির বাহিনির অন্যান্য আসামীরা দৌড়িয়ে পালিয়ে যায়। এ বিষয় পুলিশ ৪ যুবক সহ হামলায় ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্র আটকের কথা স্বীকার করেছে। অন্যদিকে জমির মালিক লুৎফর সহ স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানায়, আফজাল ফকির একজন ভুমিদস্যু এবং সে বিভিন্ন লোকের জায়গা জমি এর আগেও জবর দখল করে ভোগ করেছেন। তবে এ বিষয় আফজাল ফকির ও তার আত্মীয় স্বজনের সাথে যোগাযোগ করা হলে বাড়ীতে কাউকে পাওয়া যায়নি।



পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)