শিরোনাম:
পাইকগাছা, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

SW News24
রবিবার ● ২১ এপ্রিল ২০২৪
প্রথম পাতা » প্রকৃতি » পাইকগাছায় তীব্র তাপদাহে আমের গুটি ঝরে পড়ছে ; হতাশ চাষি
প্রথম পাতা » প্রকৃতি » পাইকগাছায় তীব্র তাপদাহে আমের গুটি ঝরে পড়ছে ; হতাশ চাষি
১০৬ বার পঠিত
রবিবার ● ২১ এপ্রিল ২০২৪
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

পাইকগাছায় তীব্র তাপদাহে আমের গুটি ঝরে পড়ছে ; হতাশ চাষি

  ---টানা তীব্র তাপদাহ আর খরায় পাইকগাছায় আমের গুটি ব্যাপক হারে ঝরে পড়ছে। এ অবস্থায় ফলন বিপর্যয়ের পাশাপাশি আম  নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন এ অঞ্চলের আমচাষিরা। মৌসুমের শুরুতে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় আম গাছে প্রচুর মুকুল ধরলেও ও গুটি ধরেনি।তারপর বৃষ্টির অভাবে গাছ থেকে ঝরে পড়ছে আমের গুটি।

বৈশাখের শুরুতে প্রচণ্ড তাপদাহ শুরু হয়েছে। তীব্র খরায় যেন পুড়ছে দেশ। খুলনার ওপর দিয়ে বয়ে চলেছে তাপপ্রবাহ। দেখা নেই বৃষ্টির।  উপকূলে লবন হাওয়ায় তাপমাত্রা আরও  বেশী অনুভূত হচ্ছে।  তবে বৃষ্টির অভাবে গুটি ঝরে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেনআম চাষি ও বাগান মালিকরা। উপজেলায় ৫৮৫ হেক্টর আম বাগান রয়েছে। উপজেলার গদাইপুর, গোপালপুর, হিতামপুর, মালত, হরিঢালী, কপিলমুনি, সলুয়াসহ বিভিন্ন গ্রামে আমগাছ রয়েছে। এ ছাড়া সড়কের পাশে ও উপজেলা ৪টি ইউনিয়ানে আম বাগানে রয়েছে বিভিন্ন উন্নত জাতের আমগাছ।

এ বছর আমের কম গুটি আসার পরও আমচাষি ও বাগান মালিকরা বুক বেঁধেছিলেন লাভের আশায়। কিন্তু বর্তমানে অনাবৃষ্টি ও দাবদাহে গাছ থেকে ঝরে পড়ছে স্বপ্নের সেই আমের গুটি। যদিও কেউ কেউ রাত ও খুব ভোরে গাছের গোড়ায় সেচ ও স্প্রে করে চেষ্টা করছেন আমের গুটিকে বাঁচানোর। কিন্তু অধিকাংশ চাষি পুঁজি এবং পানির অভাবে সেচ দিতে পারছেন না। তাকিয়ে আছেন আকাশের দিকে বৃষ্টির অপেক্ষায়।

সরজমিনে  দেখা যায়, এলাকার আমগাছের নিচে দেখা যায় অসংখ্য ছোট, মাঝারি ও বড় আমের গুটি ঝরে পড়ে রয়েছে। উপজেলার গোপালপুর গ্রামের আমবাগান মালিক আবুল কালাম বলেন, আমার আমের বাগানে খরার কারণে আমের গুটি ঝরে পড়ছে। তারপর বৃষ্টির দেখা নেই। দিন দিন তাপমাত্রা বাড়ছে। বাগানের গাছে তিন ভাগের এক ভাগ আম ঝরে পড়েছে। বৃষ্টি না হওয়ায় আম নিয়ে বেকায়দায় রয়েছি। গদাইপুর গ্রামের আমচাষি মোবারক ঢালী বলেন, তীব্র খরার কারণে আমের গুটি ঝরে গেছে। আমগাছে সেচ ও কীটনাশকের মিশ্রণ ম্প্রে করেও গুটি টেকানো যাচ্ছে না। এ সময় বৃষ্টি না হওয়ায় আম নিয়ে চিন্তায় রয়েছি।বাগানের দক্ষিণের গাছগুলোর গুটি ঝরেছে। কারণ, দক্ষিণের দিকে সূর্যের তাপ বেশি লাগে। আর উত্তরের গাছগুলোতে সূর্যের তাপ কিছুটা লাগলেও ছায়া থাকে বেশি।

উপজেলার কৃষি অফিসার কৃষিবীদ অসিম কুমার দাশ  বলেন,খরার জন্য আমের গুটি ঝরে যাচ্ছে। তাপমাত্রা বাড়ার পরেও আমের গুটি যেটুকু ঝরছে সেটা স্বাভাবিক। কৃষক বা চাষিদের হতাশার কিছু নেই। গুটি বেশি ঝরছে মনে হলে সেচ দিতে হবে।  তবে আমচাষিদের পরামর্শ দিচ্ছি গাছের গোড়ায় পানি দেওয়াসহ ছত্রাকনাশক ওষুধ স্প্রে করার জন্য। এ সময় আম রক্ষার্থে বাগান মালিক ও চাষিদের গাছের গোড়া মাটি দিয়ে গোল করে বেধে বেশি করে পানি দিলে আমের গুটি কম ঝরবে।





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)