শিরোনাম:
পাইকগাছা, বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯
SW News24
রবিবার ● ২৮ আগস্ট ২০২২
প্রথম পাতা » বিশেষ সংবাদ » বই কেনার সিদ্ধান্ত বাতিল হচ্ছে: জ্যেষ্ঠ সচিব
প্রথম পাতা » বিশেষ সংবাদ » বই কেনার সিদ্ধান্ত বাতিল হচ্ছে: জ্যেষ্ঠ সচিব
৪১ বার পঠিত
রবিবার ● ২৮ আগস্ট ২০২২
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

বই কেনার সিদ্ধান্ত বাতিল হচ্ছে: জ্যেষ্ঠ সচিব

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জেলা-উপজেলায় বই কেনার সিদ্ধান্ত বাতিল করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব কে এম আলী আজম।

 ২৮ আগস্ট--- রবিবার ২৮ আগস্ট নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন জ্যেষ্ঠ সচিব।

জ্যেষ্ঠ সচিব বলেন, ‘একজনের এত বই কেনা কোনো নিয়মে পরে না। তালিকাটা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘একজনের ২৯ বই, জানা ছিলো না। পরীক্ষা করবো। সত্যতা পেলে সংশোধনী/বাতিলের ব্যবস্থা নেব।’

লেখকের নাম না দিয়ে বিষয়ভিত্তিক বই কেনার জন্য বলা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘মানসম্পন্ন কি না, বিষয়বস্তু মেলে কি না।’

এ জাতীয় ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সেটি মাথায় রেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানান এই সচিব।

এ নিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন আজ রবিবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের জন্য বই কেনার যে অর্থ বরাদ্দ হয়েছে, সে তালিকায় অতিরিক্ত সচিব নবীরুল ইসলামসহ সরকারি কর্মকর্তাদের বইয়ের আধিক্য থাকবে না। প্রাথমিক তালিকায় এসেছে তাদের নাম, কিন্তু চূড়ান্ত না। তবে যাই হয়েছে, ঠিক হয়নি, কাজটা ঠিক হয়নি। এর বাস্তবায়ন কোনোভাবেই হবে না, এটা নিশ্চিত। পুরো ব্যাপারটা খতিয়ে দেখা হবে।’

সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্যে ‘জ্ঞানচর্চা ও পাঠাভ্যাস’ বাড়ানোর উদ্যোগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় জেলা-উপজেলায় বই কিনতে ৯ কোটি ৫৪ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। বইয়ের তালিকার মধ্যে একজন অতিরিক্ত সচিবেরই রয়েছে ২৯টি বই। সম্প্রতি একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত এমন সংবাদ প্রকাশের পর নেটিজেনদের মধ্যে এই বই কেনা প্রকল্প নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা আলোচনা-সমালোচনা।

ওই জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত এমন সংবাদে বলা হয়, বইয়ের তালিকার ১ হাজার ৪৭৭টি বইয়ের মধ্যে শতাধিক বই অন্তত ২৫ জন ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তার লেখা। যার মধ্যে অনেক বইয়ের প্রসঙ্গ একই। তালিকায় আছে আইনকানুন, দাপ্তরিক বিভিন্ন জরুরি প্রসঙ্গ, ইতিহাস ও দর্শনের প্রয়োজনীয় অনেক বই। তবে এ তালিকায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ লেখকের বই স্থান না পাওয়ায় নির্বাচনপ্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন এসেছে।

জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত এমন সংবাদে বলা হয়েছে, বই কেনার এই উদ্যোগ নিয়ে কোনো কমিটিও গঠিত হয়নি। এমনকি বৈঠকে ডাকা হয়নি বই বা পাঠাগার সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত কোনো ব্যক্তিকে। এসব বই সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কোথায় কীভাবে রাখা হবে তা নিয়েও এখন মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের ভাবতে হচ্ছে।



আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)